1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : Rezaul Karim Manik : Rezaul Karim Manik
  2. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
শবে বরাত, সবাই তো ভালো খেতে চায়-সামর্থ্যটাই সমস্যা - রংপুর সংবাদ
বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:১০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মুইও তাড়াতাড়ি তোর কাছোত আসিম’ বলে সাঈদকে চিরবিদায় দিলেন মা বৃহস্পতিবার সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের ছয় শিক্ষার্থী হত্যায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করতে হবে : জিএম কাদের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে হতাশ হতে হবে না:প্রধানমন্ত্রী হাতীবান্ধায় তিস্তার তোড়ে বিলীন কমিউনিটি ক্লিনিক নেতা-কর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান শেখ হাসিনার, জানালেন কাদের রংপুরে নিহত শিক্ষার্থী আবু সাঈদের জানাজা-দাফন সম্পন্ন ক্যাম্পাস ছাড়ছেন রংপুর বেরোবি শিক্ষার্থীরা, সতর্ক অবস্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বেরোবি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ক্যাম্পাস ছেড়েছে বেরোবি ছাত্রলীগ

শবে বরাত, সবাই তো ভালো খেতে চায়-সামর্থ্যটাই সমস্যা

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৭ মার্চ, ২০২৩
  • ৭৫ জন নিউজটি পড়েছেন

 

স্টাফ রিপোর্টার:
মুসলিমদের পবিত্র শবে বরাত আজ। এ উপলক্ষে বাজারগুলোতে বেড়েছে মুরগি ও গরু মাংসের কেনাবেচা।

সারা বছর মাংস খেতে না পারলেও এই দিনে সাধ্য অনুযায়ী মাংস কিনছেন সাধারণ মানুষ।

মঙ্গলবার (০৭ মার্চ) রাজধানীর মহাখালী কাঁচা বাজার, নিকেতন বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

সকালে বাজার ঘুরে দেখা গেছে, অন্য দিনের তুলনায় মাংসের দোকানগুলোতে কিছুটা বেশি ভিড়। কেউ-কেউ মাংস কিনেছেন, কেউবা দাঁড়িয়ে আছেন কসাই-এর কাটা শেষ হওয়ার অপেক্ষায়৷ তাদের কয়েকজনের সঙ্গে কথা হয় বাংলানিউজের।

দিনমজুর আক্কাস আলী ৩৫০ টাকায় আধা কেজি গরুর মাংস কিনেছেন। জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা তো সারা বছর মাংস খেতে পারি না। আগে তাও মাঝেমধ্যে মুরগির মাংস খেতে পারতাম। এখন দাম বাড়ায় সেটাও বন্ধ। আজ শবে বরাত, বাসায় বাচ্চাকাচ্চা আছে। তাই একটু মাংস নিলাম। এই একটা দিন একটু ভালো-মন্দ খাওয়া আরকি।

একই দোকানে গরুর মাংস কিনছিলেন বেসরকারি চাকরিজীবী ফোরকান হোসেন। তিনি বলেন, মাংস আসলে আমরা সব সময় কিনতে পারি না। বিশেষ করে গরুর মাংস। আমরা ব্যাচেলর বাসায় থাকি। আমাদের তো আর এখানে পরিবার নেই। সবাই মিলে চাঁদা তুলে মাংস কিনলাম। রাতে শবে-বরাতের ইবাদত-বন্দেগি করব। একটু ভালো-মন্দও খেলাম এই আরকি।

বিসমিল্লাহ গোশত দোকানের সত্ত্বাধিকারী আয়নাল হোসেন বলেন, অন্যদিনের তুলনায় আজ বিক্রি বেশ ভালো। দুই মণের ওপরে সকাল থেকে মাংস বিক্রি হয়েছে। অন্যান্য দিনে বিশেষ কোনো অনুষ্ঠানের অর্ডার না পেলে সাধারণত এক থেকে দেড় মণ মাংস বিক্রি হয়। অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি শবে বরাত, আর প্রথম রোজা এই দুই দিনে মাংসটা ভালো বিক্রি হয়।

এদিকে, মুরগির মাংসের দোকানেও ছিল ভিড়। ২৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে ব্রয়লার মুরগি। আর সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছিল ৩৫০ টাকা কেজি।

মুরগি কিনতে আসা রাশেদ শাহরিয়ার নামে একজন বাংলানিউজকে বলেন, গরুর মাংসের দাম বেশি। তাই মুরগি কিনতে এসেছি। মুরগির মাংসের দাম গরুর মাংসের তুলনায় কম।

পাশেই ব্রয়লার মুরগির পা-মাথা, গিলা-কলিজা বিক্রি হচ্ছিল কেজি দরে। সেখানেও ভিড় ছিল দেখার মতো। ১২০-১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে গিলা-কলিজা। দামের হিসেবে মাছের দাম বেশি হওয়ায় মাছ না কিনে অনেকেই ভিড় জমিয়েছেন সেখানে।

বিক্রেতা আজগর হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, অন্য দিনের চেয়ে আজকে একটু বিক্রি ভালো৷ শবে বরাত আমাদের দেশে বরাবরই একটু উৎসবের মতো করে উদযাপন করা হয়। তাই, আজ একটু বিক্রি ভালো। পাশেই আমার মুরগির দোকান। আসলে মানুষ তো ভালোই খেতে চায়-সামর্থ্যটাই সমস্যা।

বাজারে ব্রয়লার প্রতি কেজি ২৩৫-২৪০ টাকা, সোনালি মুরগি ৩৫০-৩৭০ টাকা, মুরগির গিলা-কলিজা ১২০-১৫০ টাকা, গরুর মাংস ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা, খাসির মাংস ১১০০-১২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

© ২০২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun