1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : Rezaul Karim Manik : Rezaul Karim Manik
  2. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
দ্রব্যমূল্য যেভাবে বাড়ছে, সেভাবে বাড়ছে না শ্রমিকদের মজুরি’ - রংপুর সংবাদ
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন

দ্রব্যমূল্য যেভাবে বাড়ছে, সেভাবে বাড়ছে না শ্রমিকদের মজুরি’

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১ মে, ২০২৪
  • ২২ জন নিউজটি পড়েছেন

নিউজ ডেস্ক:মে দিবস চালুর ১৩৮ বছর পরও শ্রমিকদের ৮ ঘণ্টা কাজের দাবি রয়েই গেছে। মজুরি কমের পাশাপাশি রয়েছে নিরাপত্তাহীনতার অভিযোগও। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে শ্রমিকেরা এখনও রেশনে খাদ্য ও পণ্য চান। তবে গত ১৫ বছরে কারখানায় শ্রমিক-বান্ধব পরিবেশ তৈরি হয়েছে বলে দাবি করেছেন নীতি-নির্ধারকেরা।

১৮৮৬ সালের এই দিনে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটের শ্রমিকেরা ৮ ঘণ্টা কাজ ও ন্যায্য মজুরির দাবিতে জীবন দেন। তখন থেকেই সারা বিশ্বে শ্রমজীবী মানুষের অধিকার রক্ষায় মে দিবস পালন করা হচ্ছে। কিন্তু যাদের শ্রমে ঘামে গড়ে ওঠে সভ্যতা, বাড়ে উৎপাদন ও রপ্তানি, সমৃদ্ধ হয় দেশ, সেই শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত হয়নি আজও।

সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, ‘কর্মক্ষেত্রে মৃত্যু হলে আমাদের এইখানে আইনে তার ক্ষতি নির্ধারণ করা হয়েছে দুই লাখ টাকা। মাথাপিছু আয় যেখানে ২ হাজার ৭৬৫ ডলার সেখানে একজন শ্রমিক যদি কর্মক্ষেত্রে মারা যান তাহলে তার ক্ষতিপূরণ হচ্ছে ২ হাজার ডলার। এর সাথে দ্রব্যমূল্য যেভাবে বাড়ছে মজুরি তো সেভাবে বাড়ছে না। ফলে ব্রিটিশ আমলেও যে দাবি উঠেছিল রেশন প্রথা, যেটি চালু হয়েছিল। শ্রমিকদের জীবনে সেই দাবিটা আবারও প্রধান হয়ে উঠেছে।’

এখনও বৈষম্য রয়ে গেছে নারী ও পুরুষ শ্রমিকের বেতন ভাতায়। দেশে বা প্রবাসে নারীদের সমমর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়নি।

বাংলাদেশ নারী শ্রমিক কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুমাইয়া ইসলাম বলেন, ‘নারীরা ব্যাপকভাবে বৈষম্যের শিকার আছে। এই বৈষম্যের কাজটা সরকার প্রথম গুরুত্ব দিয়ে না করে, তাহলে কিন্তু কাজটা এগিয়ে যাবে না। বিদেশে যাওয়া নারী শ্রমিকদের সংখ্যা কমে গেছে। বিদেশ থেকে রেমিট্যান্স আসার সংখ্যা কমে গেছে। এগুলির কারণটা কী? সেখানে নিরাপত্তা, সুরক্ষা, মর্যাদা এগুলির ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে।’

দ্রব্যমূল্য যেভাবে বাড়ছে মজুরি তো সেভাবে বাড়ছে না। ছবি: ইনডিপেনডেন্টে টেলিভিশনশ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর দাবি, শ্রমিক-মালিক সুসম্পর্ক তৈরি করে শ্রমিকদের ন্যায্য পাওনা নিশ্চিত করা হয়েছে। বিদেশে দক্ষ শ্রমিক পাঠাতে প্রশিক্ষণের ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে।

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘এই সরকার শ্রমিকবান্ধব সরকার। বঙ্গবন্ধু আজীবন এই শ্রমিকদের কল্যাণে রাজনীতি করেছেন। জাতির কন্যা শেখ হাসিনা শ্রমিকদের কল্যাণে প্রায় ১৩০ রকম সহায়তার প্রবর্তন করেছেন। একজন শ্রমিকও আমরা প্রশিক্ষণ ছাড়া পাঠাব না। তাহলে শ্রমিকও উপকৃত হবে, দেশও উপকৃত হবে।’

তিনি আরও বলেন, শ্রমিকের অধিকার রক্ষায় পরিবর্তন আনা হচ্ছে শ্রম আইনে।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

© ২০২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun