রংপুর সংবাদ » সাংবাদিকের বাড়িতে অভিযান চালানো বিধিসম্মত হয়নিঃ রংপুরের অতিরিক্ত কমিশনার

সাংবাদিকের বাড়িতে অভিযান চালানো বিধিসম্মত হয়নিঃ রংপুরের অতিরিক্ত কমিশনার


রংপুর সংবাদ মার্চ ১৫, ২০২০, ১:১৭ অপরাহ্ন
সাংবাদিকের বাড়িতে অভিযান চালানো বিধিসম্মত হয়নিঃ রংপুরের অতিরিক্ত কমিশনার

রংপুর প্রতিনিধিঃকুড়িগ্রামের বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামের রিগ্যানের বাড়িতে মধ্যরাতে অভিযান পরিচালনা করা বিধিসম্মত হয়নি বলে জানিয়েছেন রংপুর বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সার্বিক জাকির হোসেন। আজ এ বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন জমা দেবে।

এদিকে বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পরপরই প্রত্যাহার হয়ে যেতে পারেন কুড়িগ্রামে সুলতানা পারভীন। তদন্তে এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্রটি।

আজ রোববার সকাল ১০টায় রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সার্বিক জাকির হোসেন জানান, মন্ত্রণালয়ের নির্দেশক্রমে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আবু তাহের মোঃ মাসুদ রানা কে আহ্বায়ক করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ওই তদন্ত কমিটি শনিবার দুপুর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত সাংবাদিকসহ বিভিন্ন স্থানে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন। আজ রোববার দুপুরের মধ্যেই তিনি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর সেটি মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে এবং মন্ত্রণালয় থেকে তদন্ত রিপোর্টের আলোকে এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
তিনি আরো বলেন এ ঘটনায় ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা হবে তার যার যার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হবে তার তার বিরুদ্ধে বিধিসম্মতভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এদিকে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের তদন্ত সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে শনিবার দুপুর থেকে রাত দুইটা পর্যন্ত কুড়িগ্রামে নির্যাতিত সাংবাদিক আরিফুল ইসলামের বাড়ি, ডিসি অফিসসহ বিভিন্ন এলাকায় তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন তদন্ত কমিটির প্রধান।। তিনি সরেজমিনে বিস্তারিত তদন্ত করেন এবং লিপিবদ্ধ করেন।। তদন্তে সাংবাদিকের বাড়িতে মধ্যরাতে অভিযান চালানোর বিষয়টি বিধিসম্মত হয়নি এ ছাড়াও ব্যক্তিগত আক্রোশের কারণে এই মধ্যরাতে অভিযান চালানো হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। প্রত্যেকটি বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদনে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে থাকবে।

সূত্রটি জানায়, প্রতিবেদনে সাংবাদিক আরিফুলের বাড়িতে অভিযান এবং তাকে কারাদণ্ডের বিষয়টি বিধিসম্মত না হওয়ায় বিষয়ে প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা। সূত্রটি আরো জানায় তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর প্রত্যাহার হয়ে যেতে পারেন কুড়িগ্রামের ডিসি সুলতানা পারভীন। এ ধরনের সুপারিশ সুপারিশও থাকছে তদন্ত প্রতিবেদনে।। এর সাথে অন্যান্য যারা জড়িত আছেন তারাও প্রত্যাহার এবং তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা ব্যবস্থার সুপারিশ করা হতে পারে।।

শুক্রবার মধ্যরাতে ঔ সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা চালিয়ে সাংবাদিককে মারধর ডিসি অফিসে নিয়ে গিয়ে কথিত মাদক রাখার অপরাধে মধ্যরাতে এক বছরের কারাদণ্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে সারা বাংলাদেশের সাংবাদিকরা।