রংপুর সংবাদ » রংপুরে ডিস কন্ট্রোল রুম বন্ধ রাখার ঘোষনা ক্যাবল অপারেটরদের

রংপুরে ডিস কন্ট্রোল রুম বন্ধ রাখার ঘোষনা ক্যাবল অপারেটরদের


রংপুর সংবাদ মার্চ ৭, ২০২০, ৭:৫৯ অপরাহ্ন
রংপুরে ডিস কন্ট্রোল রুম বন্ধ রাখার ঘোষনা ক্যাবল অপারেটরদের

রংপুর প্রতিনিধিঃ

অবৈধ ডিস ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে রংপুরে ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে ক্যাবল অপারেটররা।

গতকাল শনিবার বিকেলে মানববন্ধন সমাবেশ ও প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষনা দেয় তারা।
সংবাদ সম্মেলনে পাগলাপীর-তারাগঞ্জের ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম লিখিত বক্তব্যে বলেন, ক্যাবল টিভি ব্যবসাকে কেন্দ্র করে রংপুরে প্রায়ই ব্যবসায়ীদের মাঝে সংঘর্ষ ও খুনের ঘটনা ঘটতো।

এ নিয়ে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ৪৫টি খুনের ঘটনাও ঘটেছে। ২০১২ সালের পর থেকে রংপুরে ক্যাবল ওয়ান কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব গ্রহণের পর ক্যাবল টিভি ব্যবসার অস্থিতিশীল পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। রংপুরবাসীকে সবচেয়ে বড় সিএ টিভি হেড-এন্ড উপহার দিয়েছে। যা ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপরেখা বাস্তবায়নে সিএ টিভি সেক্টরে অবদান রাখছে।

সম্প্রতি স্টেশন বাবুপাড়ায় সাবেক কাউন্সিল ও তার ছেলে অবৈধভাবে প্রাইম ক্যাবল নেটওয়ার্কের সিগন্যাল ব্যবহার করে সংযোগ সরবরাহসহ বৈধ ব্যবসায়ীদের সংযোগ বিচ্ছিন করছে। এছাড়া নগরীতে প্রাইম ক্যাবল নেটওয়ার্কের কর্মকর্তারা বিটিভি লাইসেন্স পরিদর্শককে ব্যবহার করে অবৈধভাবে পাইরেসি চ্যানেলের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করছে।

এতে করে বৈধ ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়াসহ সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে। এনিয়ে ক্যাবল টিভি অপারেট ব্যবসায়ীদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে আগামী ১০ মার্চ সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম (হেড-অ্যান্ড) বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে ক্যাবল ওয়ান কর্তৃপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের জিলানী, রাশেদুল ইসলাম, রাহাত হোসেন, জিল্লুর রহমানসহ রংপুর মহানগর ও বিভিন্ন উপজেলার দেড় শতাধিক ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ি

রংপুর প্রতিনিধিঃ

অবৈধ ডিস ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে রংপুরে ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে ক্যাবল অপারেটররা।

গতকাল শনিবার বিকেলে মানববন্ধন সমাবেশ ও প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষনা দেয় তারা।
সংবাদ সম্মেলনে পাগলাপীর-তারাগঞ্জের ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম লিখিত বক্তব্যে বলেন, ক্যাবল টিভি ব্যবসাকে কেন্দ্র করে রংপুরে প্রায়ই ব্যবসায়ীদের মাঝে সংঘর্ষ ও খুনের ঘটনা ঘটতো।

এ নিয়ে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ৪৫টি খুনের ঘটনাও ঘটেছে। ২০১২ সালের পর থেকে রংপুরে ক্যাবল ওয়ান কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব গ্রহণের পর ক্যাবল টিভি ব্যবসার অস্থিতিশীল পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। রংপুরবাসীকে সবচেয়ে বড় সিএ টিভি হেড-এন্ড উপহার দিয়েছে। যা ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপরেখা বাস্তবায়নে সিএ টিভি সেক্টরে অবদান রাখছে।

সম্প্রতি স্টেশন বাবুপাড়ায় সাবেক কাউন্সিল ও তার ছেলে অবৈধভাবে প্রাইম ক্যাবল নেটওয়ার্কের সিগন্যাল ব্যবহার করে সংযোগ সরবরাহসহ বৈধ ব্যবসায়ীদের সংযোগ বিচ্ছিন করছে। এছাড়া নগরীতে প্রাইম ক্যাবল নেটওয়ার্কের কর্মকর্তারা বিটিভি লাইসেন্স পরিদর্শককে ব্যবহার করে অবৈধভাবে পাইরেসি চ্যানেলের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করছে।

এতে করে বৈধ ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়াসহ সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে। এনিয়ে ক্যাবল টিভি অপারেট ব্যবসায়ীদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে আগামী ১০ মার্চ সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম (হেড-অ্যান্ড) বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে ক্যাবল ওয়ান কর্তৃপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের জিলানী, রাশেদুল ইসলাম, রাহাত হোসেন, জিল্লুর রহমানসহ রংপুর মহানগর ও বিভিন্ন উপজেলার দেড় শতাধিক ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ি

রংপুর প্রতিনিধিঃ

অবৈধ ডিস ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে রংপুরে ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে ক্যাবল অপারেটররা।

গতকাল শনিবার বিকেলে মানববন্ধন সমাবেশ ও প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষনা দেয় তারা।
সংবাদ সম্মেলনে পাগলাপীর-তারাগঞ্জের ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম লিখিত বক্তব্যে বলেন, ক্যাবল টিভি ব্যবসাকে কেন্দ্র করে রংপুরে প্রায়ই ব্যবসায়ীদের মাঝে সংঘর্ষ ও খুনের ঘটনা ঘটতো।

এ নিয়ে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ৪৫টি খুনের ঘটনাও ঘটেছে। ২০১২ সালের পর থেকে রংপুরে ক্যাবল ওয়ান কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব গ্রহণের পর ক্যাবল টিভি ব্যবসার অস্থিতিশীল পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। রংপুরবাসীকে সবচেয়ে বড় সিএ টিভি হেড-এন্ড উপহার দিয়েছে। যা ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপরেখা বাস্তবায়নে সিএ টিভি সেক্টরে অবদান রাখছে।

সম্প্রতি স্টেশন বাবুপাড়ায় সাবেক কাউন্সিল ও তার ছেলে অবৈধভাবে প্রাইম ক্যাবল নেটওয়ার্কের সিগন্যাল ব্যবহার করে সংযোগ সরবরাহসহ বৈধ ব্যবসায়ীদের সংযোগ বিচ্ছিন করছে। এছাড়া নগরীতে প্রাইম ক্যাবল নেটওয়ার্কের কর্মকর্তারা বিটিভি লাইসেন্স পরিদর্শককে ব্যবহার করে অবৈধভাবে পাইরেসি চ্যানেলের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করছে।

এতে করে বৈধ ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়াসহ সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে। এনিয়ে ক্যাবল টিভি অপারেট ব্যবসায়ীদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে আগামী ১০ মার্চ সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম (হেড-অ্যান্ড) বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে ক্যাবল ওয়ান কর্তৃপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের জিলানী, রাশেদুল ইসলাম, রাহাত হোসেন, জিল্লুর রহমানসহ রংপুর মহানগর ও বিভিন্ন উপজেলার দেড় শতাধিক ক্যাবল টিভি ব্যবসায়ি