রংপুর সংবাদ » রংপুর শ্যামাসুন্দরীর দখলদার উচ্ছেদ শুরু ৫ মার্চ

রংপুর শ্যামাসুন্দরীর দখলদার উচ্ছেদ শুরু ৫ মার্চ


রংপুর সংবাদ মার্চ ২, ২০২০, ৭:১৫ অপরাহ্ন
রংপুর শ্যামাসুন্দরীর দখলদার উচ্ছেদ শুরু ৫ মার্চ

রংপুর প্রতিনিধিঃরংপুর নগরের প্রাণকেন্দ্র দিয়ে বয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী শ্যামাসুন্দরী খাল দখল ও দূষণমুক্ত করতে অভিযান পরিচালিত হবে। অবৈধ দখল উচ্ছেদে আগামী বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) ওই অভিযান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন রংপুর সিটি করপোরেশনের (রসিক) মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা।

তিনি বলেন, শ্যামাসুন্দরী খালের অবৈধ দখল পুনরুদ্ধারে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। খালের হাল জরিপে ১৭০ জন অবৈধ দখলদারকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদেরকে নোটিশ দিয়ে অবগত করা হয়েছে। সোমবার (২ মার্চ) দুপুরে নগরের রঘুনাথগঞ্জ ডিসি বাংলো সংলগ্ন আর্কেডিয়া চত্বরে অনুষ্ঠিত দখলমুক্তকরণে উচ্ছেদ পূর্ব মতবিনিময় ও অবহিতকরণ সভায় এসব কথা জানান তিনি।

রসিক মেয়র বলেন, রংপুর নগরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও আগামী প্রজন্মকে সুন্দর নগরী উপহার দিতে হলে আগে শ্যামাসুন্দরী খালকে বাঁচাতে হবে। এই খাল পুনরুজ্জীবন ও সচল হলে নগরের পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থায় গতি আসবে। অকাল বন্যায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবে না।

সভায় জানানো হয়, রংপুর সেনানিবাসের ঘাঘট নদীর শ্যামাসুন্দরী খালের উৎস মুখ থেকে মাহিগঞ্জ পাটবাড়ি পর্যন্ত খালের দুই পাশের প্রায় ১০ কিলোমিটার সংস্কার কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে রংপুর বিভাগীয় প্রশাসন, জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় হাল জরিপ শেষ করা হয়েছে। এ সময় মৌজা ভিত্তিক কেল্লাবন্দ, রাধাবল্লভ, আলমনগর, রঘুনাথগঞ্জ ও ভগি এলাকার ১৭০ জনকে অবৈধ দখলদার হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন- রংপুর বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার জাকির হোসেন, রংপুর রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি টিএম মুজাহিদুল ইসলাম, আরপিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার আবু সুফিয়ান, জেলা প্রশাসক আসিব আহসান প্রমুখ।

সরকার এই ঐতিহ্যবাহী খালের সংস্কার ও পুনঃখননের জন্য ১০০ কোটি টাকা বাজেট দিয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে ১৮৯০ সালে খননকৃত শ্যামাসুন্দরী খালটি নাব্যতা ফিরে পাবে। এদিকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনার আগে দখলদারদের নোটিশ দিয়ে অবগত করার পাশাপাশি নগরের প্রত্যেক ওয়ার্ডে প্রচারণা চালাতে মাইকিংয়ের ব্যবস্থাও নিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।