রংপুর সংবাদ » রংপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে অজ্ঞান করে অপহরণের চেষ্টা

রংপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে অজ্ঞান করে অপহরণের চেষ্টা


রংপুর সংবাদ জানুয়ারী ২৯, ২০২০, ৮:০১ অপরাহ্ন
রংপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে অজ্ঞান করে অপহরণের চেষ্টা

রংপুর প্রতিনিধিঃরংপুরের মিঠাপুকুরে নবম শ্রেণির দুই ছাত্রীকে অজ্ঞান করে অপহরণ চেষ্টার অভিযোগে এক নারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী।

গতকাল বিকেলে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মিমির বাবা আজিজার রহমান বাদী হয়ে এক মামলা করেছেন। উপজেলার শুকুরের হাট উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ময়েনপুর ইউনিয়নের শুকুরেরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে বিরতি চলার সময় নবম শ্রেণির ছাত্রী ফুলচৌকি গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে মিমি আক্তার (১৪) এবং তার সহপাঠি চেংমারী গ্রামের আতোয়ার রহমানের মেয়ে আঁখি মণি (১৪) মাঠে গল্প করছিল।

এসময় বিদ্যালয়ের পাশে ভাড়া বাড়িতে বসবাসকারী হোসেন আলীর মেয়ে স্বামী পরিত্যাক্তা আসমা বেগম (৩০) ওই ছাত্রীদের কাছে যান।

এসময় তার কেমিক্যাল মেশানো হাত ছাত্রীদের মুখে লাগিয়ে দেন। এতে ওই দুই ছাত্রী অজ্ঞান হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। আশপাশের লোকজন ও ছাত্রীদের সহপাঠিরা এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে মিঠাপুকুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

সেখানে অবস্থার অবণতি হলে অসুস্থ ছাত্রীদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসাতালে স্থানান্তর করা হয়। ছাত্রী অপহরণ চেষ্টার অভিযোগে আসমা বেগমকে আটক করে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। শুকুরেরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেরাজুল ইসলাম বলেন, আসমা বেগম স্কুলের ছাত্রীদের অজ্ঞান করে অপহরণ করতে চেয়েছিল।

ছাত্রীদের অপহরণ করে খারাপ কাজে ব্যবহার করতো সে। ময়েনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় ওই নারী অসামাজিক কাজে লিপ্ত রয়েছে।

তার বিরুদ্ধে বাড়িতে বাইরের নারী-পুরুষ এনে অবৈধ মেলামেলার অভিযোগ রয়েছে। ঘটনার দিন বিদ্যালয়ের ছাত্রীদেরকে অজ্ঞান করে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক অসামাজিক কাজে ব্যবহার করা হতো বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এলাকাবাসী ঘটনাটি বুঝতে পেরে ওই নারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। মিঠাপুকুর থানার ওসি জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

ইতোমধ্যে ওই নারীকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।