1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : Rezaul Karim Manik : Rezaul Karim Manik
  2. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
রংপুরে পানি কমছে, বাড়ছে নদী ভাঙন - রংপুর সংবাদ
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১১:৪০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মুইও তাড়াতাড়ি তোর কাছোত আসিম’ বলে সাঈদকে চিরবিদায় দিলেন মা বৃহস্পতিবার সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের ছয় শিক্ষার্থী হত্যায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করতে হবে : জিএম কাদের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে হতাশ হতে হবে না:প্রধানমন্ত্রী হাতীবান্ধায় তিস্তার তোড়ে বিলীন কমিউনিটি ক্লিনিক নেতা-কর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান শেখ হাসিনার, জানালেন কাদের রংপুরে নিহত শিক্ষার্থী আবু সাঈদের জানাজা-দাফন সম্পন্ন ক্যাম্পাস ছাড়ছেন রংপুর বেরোবি শিক্ষার্থীরা, সতর্ক অবস্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বেরোবি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ক্যাম্পাস ছেড়েছে বেরোবি ছাত্রলীগ

রংপুরে পানি কমছে, বাড়ছে নদী ভাঙন

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪
  • ৪৪ জন নিউজটি পড়েছেন

রংপুর অফিস:
রংপুরে তিস্তা নদীর পানি কমতে শুরু করছে। তবে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর টানা কয়েকদিনের ভারী বৃষ্টির কারণে রংপুরের তিস্তা নদীর কাউনিয়া পয়েন্টে পানি গতকাল বুধবারের চেয়ে বৃহস্পতিবার ৪ সেন্টিমিটার কমেছে। গতকাল ছিল বিপৎসীমার ২০সেন্টিমিটার ওপর।

অতিরিক্ত পানি ও স্রোতের কারণে নদী পাড়ের মানুষকে দুর্ভোগ ও ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। বন্যার কারণে রাস্তাঘাট ও বাড়িঘরে ঢুকে পড়েছে পানি। এতে নদীপাড়ের মানুষের আতঙ্ক বাড়ছে।

আজ পানি উন্নয়ন বোর্ড রংপুরের তত্ত্বাবধয়ক প্রকৌশলী আহসান হাবীব বলেন, ‘তিস্তা নদীর পানি ধীরে কমতে শুরু করেছে। রংপুরের দুই উপজেলায় ঢুকে পড়েছে বন্যার পানি। তবে কিছু কিছু এলাকায় দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। এই ভাঙন রোধ করার চেষ্টা চলছে।’

রংপুরের কাউনিয়া ও গঙ্গাচড়া উপজেলায় ১০ গ্রামে পানি ঢুকে পড়ছে। দুর্ভোগ আর ভোগান্তিতে পড়ছে ওই এলাবার সাধারণ মানুষ। স্থানীয়রা বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছে।

রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার সকাল ৬টায় কাউনিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে এবং সকাল ৯টায় ১৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহ রেকর্ড করা হয়েছে। তলিয়ে গেছে পাঁচ গ্রামের আংশিক অংশ। ১০০ হেক্টর ফসলি জমির আবাদ ক্ষতির আশংকা করছে এলাকাবাসী। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আবারও পানি বাড়ার আশংকা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

অন্যদিকে বর্ষার শুরুতেই তিস্তায় পানি বেড়ে যাওয়ায় তিস্তা নদীর তীরবর্তী ও নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চলের মানুষ বন্যার আশংকা করছে। তবে গবাদি পশু, ঘরবাড়ি নিয়ে বিপাকে পড়ছে নদীপাড়ের হাজারে মানুষ। অনেকেই বন্যার আভাস পেয়ে গবাদিপশু ও ঘরবাড়ি অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছেন। নিজেরাও নিরাপদে উচু স্থানে আশ্রয় দিচ্ছেন।

রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের গদাই গ্রাম পাঞ্চরভাঙ্গা, হরিশর গ্রাম, আরাধি হরিশর গ্রামে ঢুকে পড়েছে। স্থানীয়দের বাড়ছে ভোগান্তি। এসব এলাকায় দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। অনেকে আবার বাঁশ কেটে ভাঙন রোধের চেষ্টা করছেন।

কামাল হোসেন, জাকির, ছালাম মিয়া বলেন, ‘পানি কমছে ভেঙে যাচ্ছে বাড়িঘর, ক্ষতি হয়েছে ফসলে জমির। রাস্তাঘাট ভেঙে যাওয়ায় আমাদের দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। সরকারিভাবে কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।’

পানি উন্নয়ন বোর্ড রংপুরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আহসান হাবিব বলেন, ‘তিস্তার নদীর কাউনিয়া পয়েন্টে পানি কিছুটা কমছে। যা এখন বিপৎসীমার ১৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ব্যারাজ পয়েন্টের ৪৪টি গোট খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে ডালিয়া পয়েন্টে পানি কমতে শুরু করেছে। যার কারণে ভাটি অঞ্চলে নদীপাড়ের মানুষের সমস্যা হচ্ছে।’

রংপুর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসান বলেন, ‘বৃষ্টির ফলে অনেক স্থানে পানি উঠেছে। গঙ্গাচড়া ও কাউনিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে খোঁজখবর নেওয়ার। অতি দ্রুত তাদের কাছে সরকারিভাবে সহযোগিতা ও সাহায্য দেওয়া হবে। আর ভাঙন রোদে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

 

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

© ২০২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun