1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : Rezaul Karim Manik : Rezaul Karim Manik
  2. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
দিনাজপুরে মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ - রংপুর সংবাদ
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন

দিনাজপুরে মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২৪
  • ২০ জন নিউজটি পড়েছেন

নিউজ ডেস্ক:
দিনাজপুর বিরলের আজিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফলাফল ঘোষণার পর মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় নির্বাচনে দায়িত্বরত কর্মকর্তা, পুলিশ ও বিজিবি সদস্যসহ নিরাপত্তাকর্মীদের ওপর হামলার করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুলি চালায় পুলিশ। অভিযোগ উঠেছে, এ সময় পুলিশের গুলিতে মোহাম্মদ আলী (৭০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এতে তিন পুলিশ সদস্যসহ চারজন আহত হয়েছেন।

উপজেলার সিঙ্গুল হামিদ হামিদা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে রোববার রাত রাত ৮টার দিকে এই ঘটনা। ঘটনার পর রাত ৯টার দিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনার পথে ওই বৃদ্ধর মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুর পুলিশ সুপার (এসপি) শাহ ইফতেখার আহমেদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোট গণনার সময় দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় নির্বাচনের দায়িত্বরত সরকারি কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালায় উত্তেজিত লোকজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৬০ থেকে ৭০ রাউন্ড শটগানের গুলি ছোড়ে। এতে তাদের গুলিতে মোহাম্মদ আলী নামক ওই ব্যক্তি ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ হন। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আনার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। এ সময় পুলিশের তিন সদস্যসহ চারজন আহত হয়েছেন।

পুলিশ সুপার বলেন, বিরল উপজেলার আজিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে সিঙ্গুল হামিদ হামিদা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগ্রণন হয়। ভোট গণনার পর ফলাফল ঘোষণা করা হয়। চেয়ারম্যান প্রার্থীরা শান্তিপূর্ণভাবে ফলাফল মেনে নেন। ফলাফলে মেম্বার পদে মোরগ প্রতীকের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম এবং টিউবওয়েল প্রতীকের প্রার্থী জোবায়দুল রহমান এই দুজনের মধ্যে ভোটের ব্যবধান হয় ২০টি। তাদের দুজনের দাবির প্রেক্ষিতে পুনরায় ভোট গণনা করা হয়। এরপর আবার ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ফলাফল ঘোষণার পর সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় উত্তেজিত সমর্থকেরা বাহির থেকে ভোট কেন্দ্রে থাকা সরকারি কর্মকর্তা ও পুলিশের ওপর ইট–পাটকেল নিক্ষেপ করতে শুরু করে। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে প্রথমে ফাঁকা গুলি করে।

এসপি শাহ ইফতেখার আহমেদ বলেন, ‘এ ঘটনায় যিনি মারা গিয়েছেন তিনি গুলিতেই মারা গিয়েছেন। তাঁর শরীরে আমরা গুলির আঘাত পেয়েছি। তাৎক্ষণিকভাবে আমরা এ বিষয়টি জানতে পারিনি। পুলিশ, বিজিবিসহ নিরাপত্তাকর্মীরা ঘটনাস্থলে থেকে আসার পর আমরা জানতে পারি গুলিবিদ্ধ একজনকে হাসপাতালে আনার পর মারা গেছেন। ওই ব্যক্তি বিজয়ী টিউবওয়েল প্রতীকের প্রার্থীর আপন চাচা।’

এসপি আরও বলেন, এ ঘটনায় অধিকতর তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, ঘটনার পর দিনাজপুর জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ দ্রুত দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে আসেন। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জানে আলমকে প্রধান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। আগামী তিন কর্ম দিবসের মধ্যেই তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। বর্তমানে ঘটনাস্থল থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে এবং সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

© ২০২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun