লালমনিরহাটে অর্থের বিনিময়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের পদ বিক্রয়ের অভিযোগ! | রংপুর সংবাদ
  1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
  2. kibriyalalmonirhat84@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  3. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : Manik Ranpur
  4. mukulrangpur16@gmail.com : Saiful Islam Mukul : Saiful Islam Mukul
লালমনিরহাটে অর্থের বিনিময়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের পদ বিক্রয়ের অভিযোগ! | রংপুর সংবাদ
শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ন



লালমনিরহাটে অর্থের বিনিময়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের পদ বিক্রয়ের অভিযোগ!

রংপুর সংবাদ
  • প্রকাশকালঃ সোমবার, ৫ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৩৯

জামাল বাদশা,লালমনিরহাটঃ

সম্প্রতি লালমনিরহাট জেলা স্বেচ্ছাসেবকদল ৬টি ইউনিটের কমিটি ঘোষনা করে। কমিটিতে ত্যাগী নেতাদের স্থান না দিয়ে টাকার বিনিময়ে পদ বিক্রি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে । বিএনপির এই দু:সময়ে পদ বিক্রি করে এই দুই নেতা হাতিয়ে নিয়েছেন মোটা অংকের টাকা । তাদের এই কর্মকান্ডে ক্ষুদ্ধ হয়েছেন স্থানীয় বিএনপির শীর্ষ নেতারা।

টাকা নিয়ে পদ না দেওয়ায় রবিবার রাতে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি আবু ইয়াহিয়া ইউনুছ আহমেদ ও সাধারন সম্পাদক আঃ সাত্তারের বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন পদ বঞ্চিত পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা শফিকুল ইসলাম ও মঈনুল ইসলাম সুজন ।

লিগ্যাল নোটিশ সুত্রে জানা যায়, লালমনিরহাট পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটিতে আহবায়ক ও সদস্য সচিব করে দেয়ার কথা বলে জেলা সভাপতি আবু ইয়াহিয়া ইউনুছ আহমেদ একই দলের মঈনুল ইসলাম সুজন ও শফিকুল ইসলামের নিকট টাকা দেয়ার প্রস্তাব করেন। এক পর্যায়ে টাকার অংক চুড়ান্ত হলে বিভিন্ন স্বাক্ষী গনের সম্মুখে সাধারন সম্পাদক আঃ সাত্তার সহ তিনি মোট ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে সেই কমিটিতে তাদের নাম না দিয়ে অন্য দুজনের নাম ঘোষণা করেন। এরপর তাদের টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য চাপ দেন ভুক্তভোগী নেতারা। এতে টাকা ফেরত না দিয়ে উল্টো তাদেরকে আজীবন বহিস্কারের হুমকি দেন ইউনুস আহমেদ।

পদ বঞ্চিত মঈনুল ইসলাম সুজন জানান, ইউনুস ও সাত্তার জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতৃত্বে আসার পর থেকেই কমিটিতে স্থান করে দেওয়ার কথা বলে বিভিন্নজনের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। আমাকে পদ দেওয়ার কথা বলে তারা দু’জন ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা গ্রহণ করেছেন। আমি তাদের বিচার চাই ।

একই অভিযোগ করেন আদিতমারি উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের পদবঞ্চিত রফিকুল ইসলাম । তিনি বলেন, পদ দেওয়ার কথা বলে ইউনুস ও সাত্তার দু’দফা ৪৫ হাজার টাকা নিয়েও তাকে আহবায়ক করেনি। তিনিও মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান। হাতীবান্ধা ও পাটগ্রাম উপজেলাতেও পদ প্রত্যাশী নেতাদের নিকট থেকে এই দুই নেতা মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
এ ব্যাপারে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবু ইয়াহিয়া ইউনুছ আহমেদ বলেন, আমি এখনো কোন নোটিশ পাইনি। আর টাকা নেয়ার ব্যাপারটা সম্পুর্ন মিথ্যা।

টাকার বিনিময়ে পদ পাইয়ে দেবার নাম করে লেনদেনের বিষয়টি ন্যাক্কারজনক ভাবে দেখছেন বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীরা। এর আগেও বিএনপি সহ বিভিন্ন অংগসংগঠনে টাকা দিয়ে পদ বানিজ্যের বিভিন্ন অভিযোগে ক্ষুব্ধ তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। তাদের অভিযোগ, যোগ্য ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে টাকার বিনিময়ে অযোগ্যদের কাছে পদ বিক্রি করে দলটির মধ্যে বিশৃংখলা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন কতিপয় লোভী নেতারা।



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ





© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ