রংপুর সংবাদ » ভারত-নেপাল-ভুটানের সাথে রেল যোগাযোগের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে-রেলপথ মন্ত্রী

ভারত-নেপাল-ভুটানের সাথে রেল যোগাযোগের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে-রেলপথ মন্ত্রী


রংপুর সংবাদ ডেস্ক ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২১, ৮:১৬ অপরাহ্ন
ভারত-নেপাল-ভুটানের সাথে রেল যোগাযোগের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে-রেলপথ মন্ত্রী

তাহেরুল আনামঃ

রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে সারা দেশে রেলের উন্নয়ন কাজ এগিয়ে চলেছে, রর রেল স্টেশন উচু ও বর্ধিত করন উন্নয়ন কাজ পর্যায়ক্রমে দেশের সকল স্টেশনে করা হবে।আপাততো ৫০টি স্টেশন ২৫টি পুর্বাঞ্চলে ও ২৫টি পশ্চিমাঞ্চলে চলমান রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা দিয়ে নিউ জলপাইগুডি স্টেশন হয়ে ভারত-নেপাল-ভুটান রেল যোগাযোগ খুব শীথ্রই শুরু হবে। এ জন্য বাংলাদেশ অংশে সম্প্রসারনের কাজ এগিয়ে যাচ্ছে।
তিনি বলেন,
২২ ফেব্রুয়ারী বিকেলে দিনাজপুর রেল স্টেশন উচু ও বর্ধিত করণ কাজের উদ্বোধন অনুাষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তবে তিনি এসব কথা বলেন।
রেলের দক্ষিনাঞ্চলের মহাপরিচালক মিহির কান্তির সভাপতিত্বে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, রেলের সচিব সেলিম রেজা, মহাপরিচলক ডি এন মজুমদার এবং দিনাজপুর পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন সহ রেলের উর্ধতন কর্মকর্তারা।

রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন আরো বলেছেন, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারা দেশে রেলের ব্যাপক উন্নয়ন কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। রেলের সেড,পরিস্কার পরিচ্ছন্ন, স্টেশন উচু করন সহ আধুনিকায়ন করার কাজ চলছে। দেশের প্রতিটি স্টেশন উন্নত করা হবে। ২০৪১ সাল হবে বিশ্বেও মধ্যে বাংলাদেশের রেল হবে আধুনিক।

রেলমন্ত্রী মোঃ নুরুল ইসলাম সুজন এমপি বলেন, একটি দেশের উন্নতির পথযাত্রায় যোগাযোগ ব্যবস্থা অপরিহার্য উল্লেখ করে বলেন, বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে রেলকে অবজ্ঞা করে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছিল। রেল কর্মচারীদের হ্যান্ডশেক দিয়ে অব্যাহতি দেয়া হয়েছিল। ফলে জনবল সংকটসহ নানা সমস্যা পড়ে রেল ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষমতায় আসার পর দেশের উন্নয়নের স্বার্থে রেলে প্রচুর বরাদ্দ দিয়ে রেলপথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করেছে।

ইতিমধ্যেই পঞ্চগড় থেকে ঢাকা-রাজশাহীসহ বিভিন্ন জেলায় ৪২টি ট্রেন চালু করা হয়েছে। তিস্তা, ভৈরব, কাঞ্চন ব্রীজসহ নানা ব্রীজ সংস্কার করা হয়েছে। সম্প্রসারন করা হচ্ছে রেল পথকে। ব্রডগেজ লাইন এখন প্রতিটি জেলায় দেয়া হচ্ছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই জনবল সংকট নিরসনে ১০ থেকে ১৫ হাজার কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়োগ দেয়া হবে।