রংপুর সংবাদ » বোদায় অস্ত্রের মুখে জমি বিক্রি করা ১৫ লাখ টাকা ছিনতাই

বোদায় অস্ত্রের মুখে জমি বিক্রি করা ১৫ লাখ টাকা ছিনতাই


পঞ্চগড় প্রতিনিধি ফেব্রুয়ারী ১০, ২০২১, ৭:৫৬ অপরাহ্ন
বোদায় অস্ত্রের মুখে জমি বিক্রি করা ১৫ লাখ টাকা ছিনতাই

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় জমি বিক্রি করে বাড়ি ফেরার পথে ১৫ লাখ টাকা ছিনতাই হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার দুপুরে উপজেলার বোদা সদর ইউনিয়নের মন্নাপাড়া এলাকায় পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ, ভুক্তভোগী ও স্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পঞ্চগড় সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের পূর্ব শিকারপুর এলাকার রাশেদা বেগম (৫৫) নামে এক নারী পঞ্চগড় জেলা আদালতের পিপি আমিনুর রহমানের কাছে ১১ বিঘা জমি ৫৫ লাখ টাকায় বিক্রি করেন। বুধবার দুপুরে বোদা সাব রেজিস্ট্রি কার্যালয়ে সেই জমি দলিল সম্পাদন হয়। এর আগেই তাদের মধ্যে জমি বিক্রির টাকা লেনদেন হলেও অবশিষ্ট পাওয়না ১৫ লাখ টাকা দলিল সম্পাদনের পর ক্রেতার কাছে বুঝে নেন। পরে টাকা নিয়ে রাশেদা বেগম তাঁর ছেলে সারোয়ার আলম সানী ও ভাই জহিরুল ইসলাম সহ একটি ইজিবাইকে করে বোদা উপজেলা শহর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় বোদা সদর ইউনিয়নের মন্নাপাড়া এলাকায় চারটি মোটসাইকেলে মোট আটজন ছিনতাইকারী তাদের গতিরোধ করে। এসময় দুইজন ইজিবাইকের কাছে গিয়ে পিস্তল তাক করে এবং ও ছুড়ি দেখিয়ে টাকার ব্যাগটি নিয়ে যায়। ঘটনার সময় ছিনতাইকারীদের প্রত্যেকের মুখে মাস্ক ও মাথায় হেলমেট পড়ানো ছিল বলে ভুত্তভোগীরা দাবি করেন।
ইজিবাইক চালক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, আমি যাত্রীদের নিয়ে পঞ্চগড়ের দিকে যাচ্ছিলাম। এ সময় চারটি মোটরসাইকেল হঠাৎ করে আমার ইজিবাইকের সামনে এসে আমাদের গতিরোধ করে। এ সময় তারা দুটি পিস্তল বের করে আর একটি ছুড়ি বের করে যাত্রীদের কাছে টাকা ব্যাগ চায়। এসময় তারা চিৎকার করলে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। পরে তারা চলে গেলে আমাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে।

ভূক্তভোগীর স্বামী আব্দুল কাইয়ূম (বিডিআর) জানান, আমার স্ত্রী,ছেলে ও শ্যালক জমি বিক্রির ১৫ লাখ টাকা নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় ছিনতাই কারীরা তাদের গতিরোধ করে পুরো টাকাই ছিনতাই করে নিয়ে যায়। সে সময় আমি পিপি আমিনুর রহমানের গাড়িতে করে পঞ্চগড়ে ফিরছিলাম। এ ঘটনাটি বোদা থানা পুলিশে জানালে তারা ছিনতাই কারীদের ধরতে ও টাকা উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে আমাকে জানিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে থানায় এখনো কোন মামলা করা হয়নি।
পঞ্চগড় আদালতের পিপি ও জমির ক্রেতা মো. আমিনুর রহমান বলেন, আমি রাশেদা বেগমের কাছ থেকে ১১ বিঘা জমি কিনেছি। সেই জমির কেনার বাকী ১৫ লাখ টাকা আজকে জমি রেজিস্ট্রি করার পরে দিয়ে দেই। পরে শুনি তাদের সেই টাকা নাকি ছিনতাই হয়ে গেছে। আমি দ্রুতই বিষয়টি বোদা থানা পুলিশে জানাই তারা টাকা উদ্ধার ও ছিনতাইকারীদের ধরতে চেষ্টা চালাচ্ছে বলে আমাকে জানিয়েছে।

পঞ্চগড় পুলিশ সুপার মো ইউসুফ আলী জানান, আমরা বিষয়টি জানার পরপরই পুলিশ ও ডিবি পুলিশ মাধ্যেমে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা দিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।