রংপুর সংবাদ » রংপুর কারমাইকেল কলেজের শতবর্ষী আজ অংশ নেবে ২০ হাজার শিক্ষার্থী

রংপুর কারমাইকেল কলেজের শতবর্ষী আজ অংশ নেবে ২০ হাজার শিক্ষার্থী


রংপুর সংবাদ ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯, ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন
রংপুর কারমাইকেল কলেজের শতবর্ষী আজ অংশ নেবে ২০ হাজার শিক্ষার্থী

সাইফুল ইসলাম মুকুল,রংপুরঃ

শত বছরের শত অপেক্ষার অবসান শেষে ঐতিহ্যের রঙে রঙিন হয়ে উঠেছে কারমাইকেল কলেজ। সবুজ প্রকৃতি সমৃদ্ধ উত্তরবঙ্গের অক্সফোর্ড খ্যাত এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জয়গানে মুখর শত শত প্রাণ।

এক কোটি টাকার শতবর্ষ পূর্তি এই উৎসবে অংশ নিবে কলেজের নতুন-পুরাতন বিশ হাজার শিক্ষার্থী। বহুল প্রতীক্ষিত এই উৎসবে যোগ দিতে প্রস্তুত কলেজটির সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকরা।

দুইদিন ব্যাপী উৎসব আয়োজনের উদ্বোধনী দিনে আজ রোববার আনন্দ শোভাযাত্রা, সম্মাননা প্রদান, আলোচনা, স্মৃতিচারণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন বাণিজ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা।

এছাড়াও স্থানীয় সংসদ সদস্য, বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন।
এদিকে ‘শতবর্ষে শত প্রাণ, ঐতিহ্যের জয়গান’ স্লোগানে শতবর্ষ পূর্তি উৎসব ঘিরে বাহারি রঙের আলোকসজ্জা, সড়ক ও দেয়াল আলপনাসহ নতুনভাবে সাজানো হয়েছে ক্যাম্পাসটিকে। রোববার সূর্যের আলো ছড়িয়ে পরড়ুক আর নাই বা পড়ুক, কারমাইকেল কলেজ আলোকিত হবে।

হাজার হাজার প্রাণের ভিড়ে মুখরিত থাকবে কারমাইকেল কলেজ ক্যাম্পাস। মাঠে বসবে মিলনমেলার হাট। শতবর্ষ পূর্তি উৎসবের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন আয়োজক কমিটি।

উৎসবটিকে সফলভাবে সম্পন্ন করতে ২২টি উপ-কমিটি করা হয়েছে। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কলেজের প্রাক্তন ১১ জন অধ্যক্ষ, ১৪ জন উপাধ্যক্ষ ও ২৮ জন অধ্যাপককে।

উৎসব উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মো. আকতারুজ্জামান জানান, শতবর্ষ উৎসবে যোগ দিতে ১৩ হাজার ৪৬২ জন বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী রেজিস্ট্রেশন করেছে। এছাড়া দেশ-বিদেশে থাকা প্রাক্তন শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষসহ শিক্ষার্থীদের পরিবারের সদস্যরা এই উৎসবে অংশ নিবেন।

সুবিশাল কারমাইকেল কলেজ ক্যাম্পাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে খ্যাতনামা ব্যক্তিদের আবেগ ও ভালোবাসার নাম। যাদের মধ্যে শহীদ জননী জাহানারা ইমাম, সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, চারণ সাংবাদিক মোনাজাত উদ্দিন, ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আনিসুল হক, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর অন্যতম।

উৎসবের প্রথমদিন বেলা ৪টায় শুরু হবে সাংস্কৃতিক পর্ব। এতে স্বনামধন্য বেতার ও টিভি শিল্পীরা গান ও দলীয় নৃত্য পরিবেশন করবেন। সন্ধ্যা পৌনে ছয়টায় মঞ্চে উঠবে ব্যান্ডদল জলের গান।

সমাপনী দিন ৩০ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ১১টা থেকে শুরু হবে বর্ধিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা। এতে কলেজের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের পাশাপাশি দেশের স্বনামধন্য বেতার ও টিভি তারকা শিল্পীরা নাচ ও গান পরিবেশন করবে। সেই আকর্ষণ হিসেবে থাকবে প্রয়াত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর ব্যান্ডদল এলআরবি। উল্লেখ্য, ১৯১৬ সালে রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী ও গাইবান্ধার জমিদার ও শিক্ষানুরাগীদের জমি দানে তৎকালীন অবিভক্ত বাংলার গভর্নর লর্ড কারমাইকেলের নামে নয়শ’ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠা করা হয় কলেজটি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত এই কলেজে বর্তমানে ১৮টি বিভাগে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫ হাজার। শিক্ষক রয়েছে ১৭২ জন। ২০১৬ সালে ১০ নভেম্বর কারমাইকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার একশ’ বছর পূর্ণ হয়।

প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে রেজিস্ট্রেশন করেন। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার কারণে নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করতে ব্যর্থ হয় কলেজ প্রশাসন।