রংপুর সংবাদ » এক ভুমিহীন পরিবারের আকুতি……..

এক ভুমিহীন পরিবারের আকুতি……..


রংপুর সংবাদ জানুয়ারী ৮, ২০২১, ১০:০৫ অপরাহ্ন
এক ভুমিহীন পরিবারের আকুতি……..

গোলাম কিবরিয়া,লালমনিরহাট।

লালমনিরহাটের কালিগঞ্জ উপজেলার ভোটমারি ইউনিয়নের জামিরবাড়ি গ্রামের রশিদা বেগম নামে এক ভূমিহীন ব্যক্তি নিজের ভূমিকে ফিরে পাওয়ার জন্য অনবরত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। নিজের জমিতে আজ সে নিজেই ভাড়াটিয়া। ভূমিহীন হওয়ায় আগের আবাসস্থল পরিত্যাগ করে অন্যত্র জমি ক্রয় করে পড়েছেন মহা বিপাকে। জমির দলিল ও পাচ্ছেন না কিংবা টাকাও ফেরত পাচ্ছেন না।এছাড়াও উক্ত জমিতে বাড়ি করেও পড়েছেন চরম বিপাকে। প্রতিপক্ষের হামলা মামলায় দিশেহারা পরিবারটি পাচ্ছে না প্রশাসন কিংবা সমাজপতিদের সহযোগিতা।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ভূমিহীন রশিদা বেগম ২০০১ সালের মে মাসের ২৮ তারিখে বিকাশ চন্দ্র সরকার এর নিকট থেকে ২৭ শতক জমি ক্রয় করেন। বিকাশ চন্দ্র সরকার তার স্ত্রীর অসুস্থ জনিত কারণে তার এই জমিটি বিক্রি করেন। জমি ক্রয়ের পর ভূমিহীন রশিদা তার জমির দলিল করে দিতে বললে তিনি তার স্ত্রীর অজুহাত দিয়ে বলেন স্ত্রীকে সুস্থ করার পরেই তাকে দলিল করে দিবেন।এরপর আর দলিল দেয়ার কোন খোঁজখবর নেই। কেটে যায় বছরের পর বছর। এই দিচ্ছি, আজ দিচ্ছি, কাল দিচ্ছি বলে পার করে দেয় ৫ টি বছর। বছরের পর বছর কেটে যাওয়ায় হতদরিদ্র ভূমিহীন রশিদা বেগম দিশেহারা হয়ে পড়েন এবং তখন তিনি তার ভিটেমাটি ফিরে পাওয়ার জন্য কাকুতি-মিনতি করতে থাকে বিকাশ চন্দ্র সরকারের নিকট।

তার জোরাজুরিতে বিকাশ চন্দ্র সরকার বলেন, সে জমির যেকোনো জায়গায় বাড়ি বানিয়ে থাকতে পারে। এতে কোন সমস্যা নেই এবং সে অতি শীঘ্রই তাকে দলিল করে দিবে।এরপর ২০০৫ সালে দলিল করে দেয়ার কথা বলে তার কাছে অর্থ দাবী করে। কোন উপায় না দেখে অসহায় রশিদা বেগম তাকে অর্থ প্রদান করে। কিন্তু অর্থ নেয়ার পরও তার নামে দলিল করে দেয় না বিকাশ। এভাবেই কেটে যায় আরো ১৩ টি বছর। ২০১৮ সালে জমির দলিল করে দেয়ার সর্বশেষ কথা দিয়ে পুনরায় অর্থ দাবী করে। নিজের জমি কে পাওয়ার আশায় নিরীহ রশিদা সর্বশেষ ৩ ধাপে ৩ লক্ষ টাকা প্রাদান করে বিকাশকে। কিন্তু তারপরও সে দলিল পাননি। বরং বিকাশ চন্দ্র সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে নিরীহ পরিবারটির উপর নানাভাবে চালাচ্ছে নির্যাতন । দেওয়া হয়েছে একাধিক মিথ্যা মামলাও । মামলা হামলায় সর্বশান্ত পরিবারের সন্তান শাহীন বলেন, আমরা ঠিকমত বের হতে পারি না । প্রতিনিয়তই ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দ্বারা নির্যাতন চালানো হচ্ছে । মামলাও দিয়েছে একাধিক । আমরা বিচার পাচ্ছি না। প্রায় বিশ বছরের অনেক সালিশ হওয়ার পরেও মেলেনি কোন সমাধান।
প্রায় বিশ বছর লড়াই করার পরে নিরীহ অসহায় রশিদা বেগম জানান, আমি একজন প্রকৃত ভূমিহীন। আমার নিজস্ব কোন জমি নাই। ভূমিহীন কৃষক হওয়ায় উল্লেখিত জমি বন্দোবস্ত পাওয়ার জন্য স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি অফিসে আবেদন করেছি। আমি গরিব মানুষ থাকার জায়গা না থাকায় এই জায়গাটিতে বসতবাড়ি নির্মাণ করে পরিবার নিয়ে খুব কষ্টে দিনযাপন করছি। কিন্তু বিভিন্ন মহলের হুমকি-ধমকি এবং প্রাণনাশের হুমকি আসছে যার ফলে আমরা সম্পূর্ণভাবে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমরা’ সরকারের নিকট আবেদন করছি যাতে আমাদের প্রাপ্য জমি ফিরিয়ে দিয়ে আমাদের ন্যায্য অধিকার ফিরে ফিরিয়ে দেওয়া হউক ।
এব্যাপারে কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন জানান, এ ঘটনা নিয়ে পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে । প্রকৃত জমির মালিক যাতে জমি ফিরে পায় সেই পদক্ষেপ নেওয়া হবে।