রংপুর সংবাদ » রংপুরে ছাত্র ইউনিয়নের বিক্ষোভে ছাত্রলীগ নামধারীকারীদের হামলা, আহত ৫

রংপুরে ছাত্র ইউনিয়নের বিক্ষোভে ছাত্রলীগ নামধারীকারীদের হামলা, আহত ৫


রংপুর সংবাদ ডিসেম্বর ২৩, ২০১৯, ৪:০৮ অপরাহ্ন
রংপুরে ছাত্র ইউনিয়নের বিক্ষোভে  ছাত্রলীগ নামধারীকারীদের হামলা, আহত ৫

রংপুর প্রতিনিধিঃ

ডাকসুর ভিপি নুর সহ ছাত্র অধিকার আন্দোলনের নেতা কর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে গুরতর আহত করার প্রতিবাদে ও মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চকে নিষিদ্ধ করে তাদের গ্রেফতারের দাবিতে ছাত্র অধিকার আন্দোলনের প্রতিবাদ সমাবেশে হামলা চালিয়েছে যুবলীগ ও ছাত্র লীগের নেতা কর্মীরা।

হামলায় ৫ জন আহত হয়েছে। এ সময় তারা তাদের ব্যানার ও ফেষ্টুন ছিনিয়ে নিয়ে তাদের সমাবেশ পন্ড করে দিয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনে এঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, ছাত্র আন্দোলনের নেতা কর্মীরা প্রেসক্লাবের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে আশে পার্শ্বের এলাকা প্রদক্ষিন করে। এ সময় তারা ডাকসু ভিপি সহ নেতা কর্মীদের উপর হামলা কারী ছাত্র লীগ ও মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের নেতা কর্মীদের দায়ি করে তাদের গ্রেফতার দাবি সহ বিভিন্ন দাবিতে শ্লোগান দেয়।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে তারা প্রেসক্লাবের সামনে মানব বন্ধন করার জন্য সমবেত হলে ছাত্র লীগ ও যুবলীগের নাম ধারী কয়েকজন যুবক এসে মিছিল সমাবেশে ভারতের দালাল বলা যাবে না এবং সরকার বিরোধী কোন বক্তব্য দেয়া যাবে না বলে শাসায়।

ছাত্র অধিকার আন্দোলনের নেতা কর্মীরা প্রতিবাদ করলে এ নিয়ে তীব্র বাক বিতন্ডা হয়। পরে ওই যুবকদের সাথে আরো কয়েকজন যোগ দিয়ে ছাত্র অধিকার আন্দোলনের কর্মীদের হাতে থাকা ব্যানার কেড়ে নিয়ে তাদের প্রেসক্লাব এলাকা ছেড়ে চলে যাবার জন্য তাদের গালাগালি ও ধাক্কাধাক্কি শুরু করে। তাদের মারপিটে ছাত্র অধিকার আন্দোলনের ৫ কর্মী আহত হয়।

এক পর্যায়ে তারা মানব বন্ধন পন্ড করে দেয়। ফলে বাধ্য হয়ে মানব বন্ধন কারীরা প্রেসক্লাব এলাকা ছেড়ে চলে যায়।

এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে ছাত্র অধিকার আন্দোলন রংপুর বিভাগীয় সমন্ময়কারী হানিফ খান বলেন আমরা ডাকসুর ভিপি সহ আমাদের সংগঠনের নেতা কর্মীদের উপর হামলা কারীদের গ্রেফতারের দাবিতে শান্তিপুর্ন ভাবেন বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন করতে চাইলেও পারলামনা ।

আমাদের ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে গায়ের জোরে আমাদের উপর হামলা করে সরিয়ে দেয়া হলো কিন্তু এ ভাবে আর কতদিন গায়ের জোরে এ সব করা হবে একদিন দেশের মানুষ এদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে তখন তারা পালানোর রাস্তা খুজে পাবেনা বলে হুশিয়ারী উচ্চার করেন।

এদিকে এক ঘন্টা পর পুলিশের একটি দল ঘটনা স্থলে আসে তারা কিছুক্ষন অবস্থান করে আবারো চলে যায়। এ ব্যাপারে দায়িত্বরত এস আই মমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।