1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : Rezaul Karim Manik : Rezaul Karim Manik
  2. kibriyalalmonirhat84@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  3. mukulrangpur16@gmail.com : Saiful Islam Mukul : Saiful Islam Mukul
  4. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
গোপালগঞ্জে ইজিবাইক চালক হত্যায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড - রংপুর সংবাদ
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২৫ অপরাহ্ন

গোপালগঞ্জে ইজিবাইক চালক হত্যায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১

গোপালগঞ্জে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক চালক জাহিদুল ইসলাম বাবু (১৬) হত্যা মামলায় ৫ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন বিচারিক আদালত।

একই সঙ্গে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত বিচার মো. আব্বাস উদ্দীন এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলিয়ার নতুন চন গ্রামের বাবুল ফকিরের ছেলে খালিদ ফকির, আনিচ ফকিরের ছেলে মো. বিপুল ফকির, শুকুর মোল্লার ছেলে রাজ্জাক মোল্লা, জেলার কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের ব্যাসপুর গ্রামের মো. খলিল শেখের ছেলে মো. হাসান শেখ ও নড়াইল জেলার লোহাগড়া চাচাই গ্রামের উপজেলার মো. খোকন মোল্লার ছেলে মো. ফসিয়ার মোল্লা। আসামিরা সবাই পলাতক রয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর খালিদ ফকির তার ব্যবহৃত মো্বাইল থেকে ফোন করে জাহিদুল ইসলাম বাবুকে জেলা শহরের কাঁচা বাজার সংলগ্ন মেইন রোডে আসতে বলেন। পরে ইজিবাইক চালক জাহিদুল ইসলাম বাবু সদর উপজেলার গোলাবাড়ীয়া বাড়ি থেকে আসে।

এরপর থেকে ইজিবাইক চালক জাহিদুল ইসলাম নিখোঁজ থাকে। একই বছরের ২ অক্টোবর পুলিশ ঢাকা খুলনা মহাসড়কের ভুলবাড়ীয়া ব্রিজের সড়কের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।

ওই দিন জাহিদুল ইসলাম বাবুর বাবা মো. নজরুল মোল্লা বাদী হয়ে খালিদ ফকির ও রাজ্জাক মোল্লাকে আসামি করে গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

পরে পুলিশ এজাহার নামীয় দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে এবং তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মো. হাসান শেখের বাড়ি থেকে ইজিবাইটি উদ্ধার করে।

এরপর পুলিশ ওই ৫ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত ওই ৫ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও প্রত্যেক আসামিকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন।

আদালতে সরকার পক্ষে সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট মো. শহিদুজ্জামান খান ও আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট মো. ফজলুল রহমান খান মামলাটি পরিচালনা করেন।

মামলার বাদী ও নিহতের বাবা মো. নজরুল মোল্লা বলেন, এ রায়ে আমি ও আমার পরিবার খুশি। আমাদের দাবি দ্রুত এ রায় দ্রুত কার্যকর করা হোক।

বাদী পক্ষের আইনজীবী মো. মোক্তার আলী বলেছেন, এ রায়ের মাধ্যমে এ পরিবারটি ন্যায় বিচার পেয়েছে। আশা করি উচ্চ আদালত এ রায় বহাল থাকবে এবং রায় কার্যকর হবে।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun