1. rkarimlalmonirhat@gmail.com : Rezaul Karim Manik : Rezaul Karim Manik
  2. kibriyalalmonirhat84@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  3. mukulrangpur16@gmail.com : Saiful Islam Mukul : Saiful Islam Mukul
  4. maniklalrangpur@gmail.com : রংপুর সংবাদ : রংপুর সংবাদ
মানুষই সৃষ্টির সেরা - রংপুর সংবাদ
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৪০ অপরাহ্ন

মানুষই সৃষ্টির সেরা

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২১

আল্লাহ তাআলা মানুষের জন্য পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন। মানুষের মধ্যে বিশ্বাসী মুমিনই সেরা। আল্লাহর কাছে অবিশ্বাসী মানুষের কোনো মূল্য নেই। আল্লাহর কাছে মুমিন বান্দার মর্যাদা অতুলনীয়। মুমিনের জন্য এই জগতের সব আয়োজন। তার জন্যই জগতের সৃষ্টি। আল্লাহর কাছে তার জীবনের মূল্য আছে। বান্দার আমল অনুযায়ী বিশেষ মর্যাদা আছে।

মুমিন আল্লাহর প্রতিনিধি : মুমিন আল্লাহর প্রতিনিধি—এর চেয়ে বড় সৌভাগ্য তার জীবনে আর কী আছে? আল্লাহ বলেন, ‘(হে মুহাম্মদ) স্মরণ করো, যখন তোমার প্রতিপালক ফেরেশতাদের বলেন, আমি পৃথিবীতে প্রতিনিধি সৃষ্টি করছি। তারা বলল, আপনি কি সেখানে এমন কাউকে সৃষ্টি করবেন, যে অশান্তি ঘটাবে ও রক্তপাত করবে। অথচ আমরাই তো আপনার সপ্রশংস মহিমা কীর্তন ও পবিত্রতা ঘোষণা করি। তিনি বলেন, নিশ্চয়ই আমি যা জানি, তা তোমরা জানো না।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ৩০)

আল্লাহর কাছে মানুষই শ্রেষ্ঠ : পৃথিবীতে অগণিত সৃষ্টি আছে। জল ও স্থলে এসবের বাস। সব সৃষ্টির মধ্যে মানুষই সর্বোত্তম। সব সৃষ্টিকে মানুষের অধীন করে দেওয়া হয়েছে। আসমান, জমিন যা আছে—সব কিছুকে মানুষের ব্যবহার উপযোগী ও উপকারী করে সৃষ্টি করা হয়েছে। কোরআনে আছে, ‘নিশ্চয়ই আমি আদম সন্তানকে মর্যাদা দান করেছি। আমি তাদের স্থল ও জলে চলাচলের বাহন দান করেছি, তাদের উত্তম জীবনোপকরণ প্রদান করেছি এবং অনেক সৃষ্ট বস্তুর ওপর শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছি।’ (সুরা : বনি ইসরাঈল, আয়াত : ৭০)

মুমিনের জন্য জান্নাতের সৃষ্টি : দুনিয়ার জীবন ক্ষণস্থায়ী। দুনিয়ায় মানুষ অল্প সময়ের মুসাফির। এখানে মানুষ পরীক্ষার্থী। আখিরাতের জীবন চূড়ান্ত ও চিরস্থায়ী। জান্নাতকে সৃষ্টি করা হয়েছে সুখ-শান্তি বেষ্টিত করে। কোরআনে পঠিত হয়েছে, ‘আল্লাহর কাছে তো সেই মানুষের মর্যাদা বেশি, যারা ঈমান এনেছে, দেশে ত্যাগ করেছে এবং আল্লাহর পথে নিজেদের সম্পদ ও জীবন দিয়ে জিহাদ করেছে। তারাই সফলকাম। তাদের সুসংবাদ দিচ্ছেন তাদের পরোয়ারদিগার স্বীয় দয়া ও সন্তোষের এবং জান্নাতের। সেখানে তাদের জন্য চিরস্থায়ী সুখ ও শান্তি, সেখানে তারা চিরদিন থাকবে। নিঃসন্দেহে আল্লাহর কাছে আছে মহাপুরস্কার।’ (সুরা : তাওবা, আয়াত : ১৯-২২)

আল্লাহভীরুর মর্যাদা : আল্লাহর কাছে বিশ্বাসী মানুষের স্তর আছে। বিশ্বাসের ভিত অনুযায়ী আল্লাহর কাছে মর্যাদার সার্টিফিকেট পাওয়া যায়। আল্লাহভীরু বান্দাই আল্লাহর প্রিয় বান্দা। আল্লাহ শুধু তাকওয়া দেখেন। আল্লাহর কাছে তাকওয়ার ভিত্তিতে মানুষের মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়। আল্লাহ বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে সে ব্যক্তিই আল্লাহর কাছে অধিক মর্যাদাবান, যে বেশি মুত্তাকি তথা আল্লাহভীরু।’ (সুরা : হুজুরাত, আয়াত : ১৩)

সৃষ্টির মধ্যে মানুষই সেরা সুন্দর : আল্লাহ তাআলা মানুষকে সৃষ্টির সেরা হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। এটা উপলব্ধি করানোর জন্য তাদের সৌন্দর্যমণ্ডিত করা হয়েছে। তাদের মতো সেরা বৈশিষ্ট্য ও সুন্দর আকৃতির আর কোনো সৃষ্টজীব নেই। দূর আকাশের চাঁদ, রাতের অগণিত তারা, গলে পড়া ধবধবে সাদা জ্যোত্স্না, রংবেরঙের পাখি, সৌন্দর্যমণ্ডিত ফুল—সব কিছুর চেয়ে মানুষই সুন্দর। এরা মানুষের পূজারি। মানুষের জন্যই এগুলোর আবির্ভাব। আল্লাহ বলেন, ‘আমি মানুষকে অতি সুন্দর অবয়বে সৃষ্টি করেছি।’ (সুরা : ত্বীন, আয়াত : ৪)

মুসলমান পৃথিবীর আশীর্বাদ : জগৎএকদিন ধ্বংস হবে—কিয়ামত হবে। কিয়ামত কখন হবে আল্লাহ ভালো জানেন। কিয়ামতের জ্ঞান আল্লাহ ছাড়া কারো কাছে নেই। তবে কিয়ামতের বহু নিদর্শন এরই মধ্যে প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিনিয়ত প্রকাশিত হচ্ছে। হাদিসের ভাষ্য মতে বোঝা যায়, বিশ্বাসী মুসলমান পৃথিবীতে থাকলে কিয়ামত হবে না। ‘আল্লাহ’ উচ্চারণকারীর জন্য আল্লাহ তাআলা পৃথিবী টিকিয়ে রাখবেন। একজন আল্লাহ বিশ্বাসী মুসলমানের মর্যাদা পুরো জগতের চেয়ে আল্লাহর কাছে বেশি। রাসুল (সা.) বলেন, ‘পৃথিবীতে যত দিন আল্লাহ আল্লাহ বলা হবে, তত দিন কিয়ামত প্রতিষ্ঠিত হবে না।’ (সহিহ মুসলিম)

 

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun