রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৮:০১ পূর্বাহ্ন

ঘরোয়া পদ্ধতিতেই আরোগ্য

রংপুর সংবাদ
  • প্রকাশের সময়ঃ সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০

রংপুর সংবাদ ডেস্কঃ সর্দিতে বন্ধ হয়ে গিয়েছে নাক, গলায় প্রচণ্ড ঘরঘর শব্দ, সঙ্গে মাঝে মাঝেই আসছে জ্বর। কোনো কাজেই ঠিকমতো মন বসছে না। ফ্লু হলে সারা দিনের রুটিনের যেন বারোটা বেজে যায়। অফিস থেকে বাড়ি, এমনকি রাস্তাঘাটেও পড়তে হয় নানারকম সমস্যায়। ডাক্তারের কাছে না ছুটে আপনি বাড়িতে বসেই কীভাবে সাধারণ ফ্লু সারানো যায়, তার উপায় জেনে নিন। জানালেন নাহার সুলতানা

মধু আর তুলসীপাতা : গলার কফ এবং সর্দিকাশি হলে প্রতিদিন সকালে মধু আর তুলসীপাতা একসঙ্গে খেয়ে নিন। দেখবেন গলা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে, আপনি আরাম পাচ্ছেন।

আদা চা : ঠাণ্ডা লাগায় সর্দিতে নাক বন্ধ। গলার ব্যথা। গলা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে আদা চা কিন্তু আপনাকে সহজে রেহাই দিতে পারে । শুধু গলার কফ সরাতেই নয়, বুকের কফ পরিষ্কার করতেও আদা চায়ের তুলনা হয় না। তবে আদা চা বানাবেন কী করে? খুব সহজ পদ্ধতি। ফুটন্ত পানিতে চিনি দিয়ে ফোটান। চিনি মিশে গেলে চা দিয়ে ফোটাতে হবে। এরপর এর মধ্যে আদার কুচি। অল্পক্ষণ পর ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে নিন চা। চাইলে এতে মেশাতে পারেন পাতিলেবুর অল্প রস। এটা চায়ে ভিটামিন সি যোগ করে। এই আদা চা খেলে সর্দির সময় মাথাধরা কমে যায়। একইসঙ্গে দুর্বলতা কেটে গিয়ে শরীর চাঙ্গা হয়ে ওঠে।

ভিটামিন : শরীরে ভিটামিনের অভাব হলে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। তখন বাইরের রোগজীবাণু সহজেই শরীরকে আক্রমণ করতে পারে। ফ্লুও একই কারণে হয়ে থাকে। তাই প্রতিরোধ করতে হলে ভিটামিন খাওয়া জরুরি। অনেকেই শরীরে ভিটামিন পেতে বেছে নেন ভিটামিন সাপ্লিমেন্টস। কিন্তু সবসময় ভিটামিন সাপ্লিমেন্টস না নিলেও চলে। কিছু কিছু খাবারে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ বি সি ইত্যাদি। তাই খাবারের একটি ঠিকঠাক তালিকা তৈরি করার চেষ্টা করুন যাতে শরীরে সব ধরনের ভিটামিন ঠিকমতো প্রবেশ করতে পারে। ভিটামিন শরীরের রোগপ্রতিরোধে অংশ নেয়। ফলে সর্দি-কাশির মতো ছোটখাটো রোগগুলো সহজে কাবু করতে পারে।

তরল খান : কফ একবার বুকে জমে গেলে বের করা কঠিন‌। ঠিকমতো চিকিৎসা না করাতে পারলে হতে পারে ইনফেকশনও। তাই সর্দি-কাশির সময় কোনোভাবেই যেন বুকে কফ বসে না যায়‌। এর জন্য খেতে হবে প্রচুর পরিমাণে তরল। শুধু জলই খেতে হবে তার কোনো মানে নেই। বরং চলতে পারে ফ্রুট জুস বা স্যুপ জাতীয় খাবারও। এই তরল কফকে সহজে বুকে বসতে দেয় না। বুকে থাকা কফকে তরল করে দিয়ে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করে।

বিশ্রাম নিন : ফ্লু অনেক সময় ছোঁয়াচে হয়। ফলে আপনার ফ্লু হলে হতে পারে আপনার আত্মীয়স্বজনের। হয়তো আপনার ফ্লুও হয়েছে এমনভাবেই। তাই এইসময় জ্বর গায়ে বাড়ি থেকে কোথাও না বেরিয়ে বাড়িতেই বিশ্রাম নেওয়া ভালো। এতে সংক্রমণের আশঙ্কা কমে। এই সময় শরীর যথেষ্ট দুর্বল থাকে। তাই ঠিকঠাক বিশ্রাম নিতে প্রয়োজন পর্যাপ্ত ঘুমের। বাড়িতে যখন আছেন, চেষ্টা করুন পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমিয়ে নেওয়ার। ঘুম ভাঙলে দেখবেন, শরীর অনেক চাঙ্গা লাগছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © Rangpur Sangbad
Design & Develop By RSK HOST