রংপুর সংবাদ » রংপুরে ফের চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যু

রংপুরে ফের চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যু


রংপুর সংবাদ নভেম্বর ১৬, ২০১৯, ৮:৪৬ অপরাহ্ন
রংপুরে ফের চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যু

রংপুর প্রতিনিধিঃ

রংপুর নগরীর বেসরকারী লাকী হসপিটালে চিকিৎসকের অবহেলায় মাজেদা বেগম(৩৬) নামের এক প্রসূতি মারা গেছে বলে স্বজনদের অভিযোগ। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসপাতাল চত্বরে স্বজনদের আহাজারি আর বিক্ষোভে পুরো হাসপাতালে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। হাসপাতাল কতৃপক্ষ দিনভর পুরো বিষয়টি ধামা চাপা দেবার চেষ্টা করে।

পুলিশ জানায়, রংপুরের সদর উপজেলার শ্যামপুর ঠাটারিপাড়া গ্রামের দিনমজুর ফুল মিয়ার স্ত্রী প্রসব ব্যথায় আক্রান্ত হওয়ায় সিজার করার জন্য নগরীর কেন্দ্রিয় বাস টার্মিনাল এলাকায় অবস্থিত বেসরকারী লাকী হসপিটালে শুক্রবার সন্ধায় ভর্তি করে ।

শনিবার ভোর রাতে মাজেদার সিজার করেন জনৈক এক চিকিৎসক।
স্বজনদের অভিযোগ ভর্তির সময় সুস্থ ছিলো কিন্তু চিকিৎসকরা ভুল চিকিৎসা দেয়ায় হঠাৎ করে শনিবার রাতে সিজারের পরই অসুস্থ হয়ে।এবং মৃত্যুর কোলে ঢলে।অসুস্থ হয়ে পড়ার পর চিকিৎসকরা নানা কথা বলে মৃত দেহ প্রাইমে নিয়ে যায়। সেখানকার চিকিৎসকরা জানান,মাজেদা অনেক আগেই মারা গিয়েছিল।

লাকি হসপিটালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা, এরশাদুল হকের কাছে মারা যাবার কারন জানতে চাইলে সে কিছু না বলেই চলে যান।

এ ঘটনায় স্বজনদের আহাজারি আর বিক্ষোভে পুরো হসপিটালে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। হসপিটাল কতৃপক্ষ পুৃরো ঘটনাকে ধামা চাপা দেবার চেষ্টা করে কিন্তু স্বজনদের অভিযোগ শিশু ভুল চিকিৎসা দিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে মাজেদাকে।

এ ব্যাপারে মাজেদার স্বামী ফুল মিয়া জানান ,আমরা তো টাকা দিয়ে চিকিৎসা করাতে ভর্তি করেছিলাম। আমার স্ত্রী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে বার বার ডাক্তারকে ডাকা হলেও ডাক্তার আসেনি। তাকে যে স্যালাইন দেয়া হয়োিছলো সেটাও কাজ করছিলো না এ ব্যাপারে নার্সকে বলেও কাজ হয়নি। তারা বলেন হসপিটালের ডাক্তার আর নার্স মানুষ রুপি কসাই এদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

এদিকে হসপিটালের চেয়ারম্যান লাকী বেগম জানান,ওই মহিলাটি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলো তারা চেষ্টা করেছেন কিন্তু তাকে বাঁচানো যায়নি। তাদের কোন গাফিলতি ছিলো না বলে দাবি করা হয়। তবে এ বিষয়টি যেন নিউজে না আসে এ কতিপয় নামধারী সাংবাদিকদের ৬০০০হাজার টাকা দিয়ে ম্যানেজ করা হয়েছে। আপনি আবার কেন ফোন দিয়েছেন?

এদিকে খবর পেয়ে মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতয়ালী থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানান,লোকমুখে শুনেছি।ি তনি জানান,লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এব্যাপারে রংপুর সির্ভিল সার্জন ডাঃ হিরম্ভর কুমার রায় বলেন, আমি লোক পাঠিয়েছি,এটি রেজিষ্টেশনবিহীন ক্লিনিক,তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।